মানবতার উজ্জল দৃষ্টান্ত দেখালো ফরিদপুরের প্রশাসন এবং সেচ্ছাসেবী সংগঠন

Page Visited: 1161
68 Views

ফরিদপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধা কমলেশ চক্রবর্তী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরন করেছেন। এদিকে তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরাও আক্রান্ত থাকায় তারাও তাদের পরিবারের এই গুণী ব্যক্তির দাহ কার্যে অংশ নিতে পারে নি শুধুমাত্র তার বড় ছেলে কুশল চক্রবর্তী দ্বীপ অংশ নিয়েছিলো। এমন পরিস্থিতে এগিয়ে আসে ফরিদপুর উপজেলা প্রশাসন এর নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মাসুম রেজা , তার তত্বাবধানে  এগিয়ে আসে সেচ্ছাসেবী সংগঠন তরুছায়া। হাসপাতাল থেকে মরদেহ শ্মশান ঘাটে নেয়ার পথে এলাকা বাসীর বাধার মুখে পরতে হয়।  অতপরঃ ফরিদপুর জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় ফরিদপুর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশেদুল ইসলাম এর নেতৃত্বে  স্থানীয়দের বুঝিয়ে সড়িয়ে দেয়া হয় এবং দাহ কার্য্যক্রম শুরু করা হয় ।

ফরিদপুর জেলা পুলিশ এর কুইক রেস্পন্স টিমের ইনচার্জ উপ পরিদর্শক আনোয়ার হোসেন এবং তার সহযোদ্ধারা এবং  মুক্তিযোদ্ধা কমলেশ চক্রবর্তীর বড় ছেলে কুশল চক্রবর্তী দ্বীপও  মরদেহ এম্বুলেন্স থেকে নামিয়ে চিতায় নিয়ে যান এবং চিতা প্রস্তুত করে দাহ সম্পন্ন করেন। দাহ সম্পন্ন করার আগে  মুক্তিযোদ্ধা কমলেশ চক্রবর্তীকে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়,  বড় ছেলে মুখাগ্নী করার পরে সকল নিয়ম মেনে পুলিশ সদস্যগন দাহ কার্জ সম্পন্ন করেন ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কোতওয়ালী থানার ওসি জনাব রাশেদুল ইসলাম,ফরিদপুর উপজেলা প্রশাসন এর নির্বাহী অফিসার জনাব মাসুম রেজা এবং সেচ্ছাসেবী সংগঠন তরুছায়ার সদস্যগন।

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ সুত্রে জানা যায় মুক্তিযোদ্ধা কমলেশ চক্রবর্তী ২১ মে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হন এরপর তাকে ২৩মে ফরিদপুর করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে ভর্তী করা হয়। পরবর্তীতে তার অবস্থার অবনতী হলে তাকে ফরিদপুরেই আই সি ইউ তে চিকিৎসা দেয়া হয় এবং আইসিউ ইউনিটেই চিকিৎসারত অবস্থায় মৃত্যুবরন করেন।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *