ফরিদপুর লাইভ গ্রুপের বন্ধুদের ১ম ভ্রমণ হাজারবিঘা বনে

Page Visited: 872
73 Views

শুক্রবার ৮ই জানুয়ারী ফরিদপুর সিটি পেইজের অন্যতম গ্রুপ ফরিদপুর লাইভ এর সদস্য বন্ধুদের নিয়ে হয়ে গেলো ১ম বনভোজন স্থান হাজারবিঘা বন চরভদ্রাসন উপজেলা এবং ফরিদপুর সদর উপজেলার নর্থ চ্যানেল । মাত্র ৩দিনের ঘোষণায় ৬২জন বন্ধুদের নিয়ে এই ভ্রমণ এর আয়োজন করা হয়েছিলো। এতো অল্পসময়ের সবার এতো সারা পেয়ে সত্যিই অবিভূত ফরিদপুর সিটি এডমিন প্যানেল।

ফরিদপুরের দুর্গম এই স্থানে সকলের যাওয়ার সুযোগ নেই তার একমাত্র কারন যাতায়াত ব্যবস্থা এবং নিরিবিল স্থান । তবে আগের চেয়ে এখন যাতায়াত ব্যবস্থা কিছুটা উন্নত হয়েছে আশা করা যাচ্ছে আরও উন্নত হবে। গ্রুপের সদস্য বন্ধুদের নিয়ে সকাল ১০টা ১০মিনিটে সি এন্ড বি ঘাট থেকে যাত্রা শুরু করা হয় যেতে যেতে সকলে পদ্মার দুপাড়ের সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে থাকে তবে শুরুতে অনেক রোদ ছিলো শীতকালে এমন রোদ কেউ ভাবতেও পারিনি। ১ঘন্টার নৌ ভ্রমণ শেষে পৌছে যাই ঘাটে সেখানে আমাদের সকলে জন্য অপেক্ষা করছিলো ৬টি ঘোড়ার গাড়ি সকলে ঘোড়ার গাড়িতে উঠে পরে। অনেকেই ১ম ঘোড়ার গাড়িতে উঠতে পেরে ভীষন আনন্দীত তাদের এই আনন্দ টিম ফরিদপুর সিটির জন্য উৎসাহ হিসেবে কাজ করবে। এরপর ১ম গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা হই সবাই ইটের রাস্তা দিয়ে এবরোথেবরো রাস্তা পার হয়ে পাকা রাস্তায় উঠে যায় ঘোড়ার গাড়ি। রোদের সাথে তখন বাতাস ছিলো যার জন্য তখন রোদটা উপভোগ্য ছিলো। চরে অপস্থিত এমপি ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন এর দৃষ্টি নন্দন বাড়িতে পৌছে যাই সবাই সেখানে সকলে নেমে ঘুরে দেখি । এরপর আমরা সবাই হাজারবিঘা বনের উদ্দেশ্যে রওনা হই যেতে যেতে আমরা নর্থ চ্যানেল ৩৮ দাগে প্রবেশ করি আর দুপাশের গ্রামীন পরিবেশ উপভোগ করতে থাকে সবাই।

পাকা রাস্তা শেষ হতেই আবারও মেঠো পথ শুরু হেলে দুলে চলতে থাকে ঘোড়ার গাড়ি যেতে যেতে পৌছে যাই সবাই হাজারবিঘা বনে যা ফরিদপুরের আমাজন নামে পরিচিত। এই নাম করণ এর পেছনের গল্পটা অন্যরকম ফরিদপুরের এই স্থানকে সবার দৃষ্টিতে আনার জন্যই মুলত এই নাম দেয়া তবে স্থানীয় নামেই পরিচিত পাক এই স্থান এটিই টিম ফরিদপুর সিটি চায়। বনের মধ্যেই সকলে বসে একসাথে দুপুরের খাবার খাওয়া হয় যাকে বলা প্রকৃত বনভোজন। দুপুরের খাবার খেয়ে আমরা ২য় বনের মধ্যে প্রবেশ করি ১ম বনে সাপের উপোদ্রব বেশি থাকায় ২য় বনে সকলকে নিয়ে যাওয়া হয়। ২য় বনটি এবার গিয়ে দেখতে পেলাম পরিস্কার করে ফেলেছে সাপের উপোদ্রোব এর কারনে তাই বেশ পরিস্কার লাগলো দেখে। বনের ভেতর দিয়ে সকলে হেটে হেটে যেতে হয় তবে বিকেলবেলাটা যেনো সবার বেশি ভালো লাগছিলো মন চাচ্ছিলো না চলে আসি কেউ বা আবার সবুজ ঘাসে শুয়ে ছিলো একাকি মনে।

বেশি কিছুদুর হাটার পরে সকলে আবারও ঘোড়ার গাড়িতে উঠে বসি চলে যাই শেষ গন্তব্যের দিকে যেখানে রয়েছে ৫ হাজার নারিকেল গাছ। সেখানে খুব বেশি সময় থাকতে পারিনি কারন শুরুতে ১ ঘন্টা আমাদের বিলম্ব হয়েছিলো সেজন্য আন্তরিকভাবে দুক্ষিত সকলে কাছে। তবুও সকলকে আমরা সকল স্থান ঘুরে দেখিয়েছি নারিকেল বাগানেই লটারির পুরস্কার দেয়া হয় । এরপর ট্রলারের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়া হয় সেখান থেকে। সকলের নিকট আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি টিম ফরিদপুর সিটির পক্ষ থেকে । আশাকরি ভবিষ্যতেও এমন আয়োজন থাকবে ফরিদপুর লাইভ গ্রুপের সকল বন্ধুদের জন্য। এই আয়োজনে যেসকল বন্ধুরা গিয়েছিলো তারা হচ্ছেন

বিপ্লব মন্ডল মডারেটর
মেহেদী হাসান
প্রিন্স
আসিফ
শিশির
সজল সাহা
জিত সিনহা
আবির হাসান হৃদয় মডারেটর
সুমন আহমেদ
রমজান এর পরিবার
তানভির আহমেদ মডারেটর
মিঠুন
নাসিম
সোহান
হিমাদ্রি
জুবায়ের মাডারেটর এর পরিবার
জুবায়ের হোসেন
রোকন উদ্দিন মডারেটর
শ্রাবনী মজুমদার মডারেটর
অভিষেক মডারেটর
সম্পদ সাহা
রাসেল মৃধা মডারেটর
মোঃ এমদাদুল হাসান
ফারিয়া দীপ্ত স্রোত
প্রলয় মজুমদার
ইব্রাহীম
সোয়াদ
অমিত মনোয়ার ভাইয়ার পরিবার
মেহেদী হাসান হৃদয় মডারেটর
অলিন
অথৈ
সালমান রহমান পিয়াল মডারেটর
বায়েজিদ
সবুজ
কাউসার
মনির
সাদিক
তালহা
হৃদয়
দুর্জয়
দুর্জয়ের বন্ধু ১জন
অমৃত
হাসান আলী
রাবিবুল্লাহ রাকিব
নাইম
আনোয়ার
মনিরুল
হেমায়েত
লিয়ন
জাওয়াদ আবির
নাজমুল কবির
জুনায়েদ বিন সুলতান সজীব
তালমা থেকে সোহান মুন্সি

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *